৩১ মে থেকে ফের শেয়ারবাজারে লেনদেনকরোনা মোকাবিলায় বাজেটে জরুরি বরাদ্দ থাকছে ১০ হাজার কোটি টাকা'পেট ভরে খেতে পারলেই হলো, বাজেটের খোঁজ রাখি না'ঈদের ছুটিতেও শুল্ক স্টেশন খোলা‘এবারের বাজেট বেঁচে থাকার বাজেট’
No icon

আগামী মাসে স্মার্ট কার্ড পাবেন করদাতারা

২০৪১ সালে সমৃদ্ধিশালী দেশ প্রতিষ্ঠার রূপকল্প বাস্তবায়নে সবাইকে এগিয়ে আসার আহ্বান জানিয়েছেন জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের (এনবিআর) চেয়ারম্যান ও অভ্যন্তরীণ সম্পদ বিভাগের জ্যেষ্ঠ সচিব মো. নজিবুর রহমান। তিনি বলেন, আগামী মাসে নিয়মিত করদাতাদের স্মার্ট কার্ড দেয়া শুরু হবে। এছাড়া করদাতাদের বিশেষ সুবিধা দেয়ার মাধ্যমে কর পরিশোধে সবাইকে উত্সাহিত করা হবে বলে জানান তিনি। গতকাল সিলেট কর অঞ্চল আয়োজিত দিনব্যাপী রাজস্ব সংলাপে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এনবিআর চেয়ারম্যান এসব কথা বলেন। মো. নজিবুর রহমান বলেন, জনগণ কর দেয়ার কারণেই বাংলাদেশ এগিয়ে যাচ্ছে। দেশের প্রবৃদ্ধি ত্বরান্বিত হচ্ছে। বিশ্বের কাছে অগ্রসরমাণ দেশগুলোর মধ্যে বাংলাদেশ এখন রোল মডেল। অভ্যন্তরীণ সম্পদের জোগান বাড়ানোর কারণে আমাদের বিদেশনির্ভরতা কমছে। ফলে অতীতের সব রেকর্ড ভঙ্গ করে এগিয়ে যাচ্ছে কর বিভাগ।

রাজস্ব বোর্ডের চেয়ারম্যান বলেন, সিলেট থেকেই নিয়মিত করদাতাদের স্মার্ট কার্ড দেয়া শুরু হবে। আগামী মাসে আয়কর মেলায় এ কার্ড প্রদান করা হবে। করদাতাদের গাড়িতে লাগানো থাকবে ট্যাক্স-পেয়ার পরিচায়ক স্টিকার। অফিস-আদালতে তারা অগ্রাধিকার ভিত্তিতে সেবা পাবেন।

সিলেটের বিভাগীয় কমিশনার ড. মোছাম্মত্ নাজমানারা খানুমের সভাপতিত্বে রাজস্ব সংলাপে বিভিন্ন শ্রেণী-পেশার মানুষের মতামত গ্রহণ করা হয়। অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন এনবিআরের সদস্য (প্রশাসন) এসএম আশফাক হোসেন, সদস্য (কর প্রশাসন ও মানবসম্পদ ব্যবস্থাপনা) মো. আব্দুর রাজ্জাক, সদস্য (কাস্টমস নীতি) মো. লুত্ফুর রহমান, অভ্যন্তরীণ সম্পদ বিভাগের যুগ্ম সচিব আমিনুল বর চৌধুরী, সিলেট রেঞ্জের ডিআইজি কামরুল আহসান, পুলিশ কমিশনার গোলাম কিবরিয়া, জেলা প্রশাসক রাহাত আনোয়ার, সিলেট চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রিজের সভাপতি খন্দকার শিপার আহমদ, মেট্রোপলিটন চেম্বারের সভাপতি হাসিন আহমদ, সিলেটের কর কমিশনার সৈয়দ মোহাম্মদ আবু দাউদ প্রমুখ।

পরবর্তীতে সিলেট চেম্বারের হলরুমে আয়কর ক্যাম্প ও করদাতা উদ্বুদ্ধকরণ অনুষ্ঠান ২০১৭-এর উদ্বোধন করেন এনবিআর চেয়ারম্যান। সিলেটের কর কমিশনার সৈয়দ মোহাম্মদ আবু দাউদের সভাপতিত্বে ও অতিরিক্ত কর কমিশনার তৌহিদুল ইসলামের পরিচালনায় অনুষ্ঠানে ২৮ জন নিবন্ধিত করদাতা প্রধান অতিথির কাছ থেকে সনদ গ্রহণ করেন। অনুষ্ঠানের সমন্বয়ক কাজল কুমার সিংহ জানান, আয়কর ক্যাম্পে মোট কর আদায় হয়েছে ৬৬ লাখ ৩১ হাজার ৭৩ টাকা। এর মধ্যে পে-অর্ডারের মাধ্যমে ৬২ লাখ ২২ হাজার ৮০০ টাকা ও চালানের মাধ্যমে ৪ লাখ ৮ হাজার ২৬৫ টাকা আদায় হয়েছে। রিটার্ন জমা পড়েছে ৫৯টি। নতুন করদাতা হিসেবে নিবন্ধিত হয়েছেন ১২৬ জন।