আবারও ভোজ্যতেলের ভ্যাট ১৫ শতাংশপ্রত্যক্ষ কর বাড়ানোর সুপারিশ মেট্রো চেম্বারেরউচ্চ মূল্যস্ফীতির কারণে বৈশ্বিক মন্দার আশঙ্কা উৎসে কর কর্তন: ব্যাখ্যা চেয়ে এনবিআরকে তিন ব্যাংকের চিঠিমিয়ানমারের অর্থনীতি পতনের দ্বারপ্রান্তে
No icon

অর্থবছরের প্রথম মাসে রাজস্ব আদায় বেড়েছে ১৬%

চলতি ২০২২-২৩ অর্থবছরের প্রথম মাস জুলাইয়ে জাতীয় রাজস্ব বোর্ড (এনবিআর) ১৭ হাজার ৭৬০ কোটি ৬৮ টাকার রাজস্ব সংগ্রহ করেছে, যা গত অর্থবছরের জুলাই মাসের তুলনায় ১৫ দশমিক ৭৪ শতাংশ বেশি। তবে সার্বিকভাবে প্রবৃদ্ধি থাকলেও রাজস্ব আয়ের বড় খাত স্থানীয় পর্যায়ের ভ্যাট আদায় কমেছে। এনবিআরের রাজস্ব সংগ্রহবিষয়ক সাময়িক হিসাব থেকে এ তথ্য জানা গেছে।এনবিআর সূত্রে জানা গেছে, জুলাই মাসে ২০ হাজার ৫৮৬ কোটি টাকার রাজস্ব সংগ্রহের লক্ষ্যমাত্রা ছিল। এর মধ্যে সবচেয়ে বেশি ৮ হাজার ২১৪ কোটি টাকার লক্ষ্যমাত্রা ছিল ভ্যাট খাত থেকে। কিন্তু এ খাতে সংগ্রহ হয়েছে ৬ হাজার ২৬১ কোটি ৮৫ লাখ টাকা। এ ছাড়া আমদানি পর্যায়ের শুল্ক্ক থেকে ৬ হাজার ৭৬৬ কোটি ৬৮ লাখ এবং আয়কর ও ভ্রমণ কর থেকে ৪ হাজার ৭৩২ কোটি ১৫ লাখ টাকা আদায় হয়েছে।

জুলাই মাসে মোট আদায় দাঁড়িয়েছে লক্ষ্যমাত্রার ৮৬ শতাংশ, যা লক্ষ্যমাত্রার তুলনায় ২ হাজার ৮২৫ কোটি টাকা কম। গত বছরের জুলাই মাসে এনবিআর মোট ১৫ হাজার ৩৪৪ কোটি টাকা রাজস্ব সংগ্রহ করে, যা ছিল ওই মাসের লক্ষ্যমাত্রার ৭৯ শতাংশ। আর রাজস্ব সংগ্রহে প্রবৃদ্ধি ছিল ৪ শতাংশ।এনবিআরের সংশ্নিষ্ট কর্মকর্তারা বলছেন, উচ্চ মূল্যস্ম্ফীতির কারণে ভ্যাট থেকে আশানুরূপ রাজস্ব সংগ্রহ হয়নি। বাজেটে বেশ কিছু পণ্যে শুল্ক্ক বাড়ানোর কারণে দাম বেড়েছে। সেগুলোর কেনাবেচা কমেছে। গত জুলাইয়ে মূল্যস্ম্ফীতি ছিল ৭ দশমিক ৪৮ শতাংশ। তবে বিশ্ববাজারে পণ্যের মূল্যবৃদ্ধির কারণে আমদানি পর্যায়ে রাজস্ব সংগ্রহ বেড়েছে। বিশেষ করে ফার্নেস অয়েল, চিনি, ডিজেল, সিমেন্ট ক্লিংকার, এলএনজি, স্টিল শিট, পাথর ও কয়লা থেকে রাজস্ব এসেছে বেশি।